অবয়বশিল্পী সিরাজুলের অর্থাভাবে চিকিৎসা ব্যাহত: আর্থিক সহযোগীতার আহবান

Date:

Share post:

 

বাবলী আকন্দঃ একজন অবয়বশিল্পী। যিনি একজন মানুষের অবয়বে বিভিন্ন ধরনের অবয়ব ফুটিয়ে তুলেন। তাঁর নিপুণ হাতে তিনি সমাজের মুচি শ্রেণী থেকে ধনীওয়ালার চরিত্র ফুটিয়ে তুলেন একজন অভিনয়শিল্পীর মুখে। তিনি ভালোবেসে মনের মাধুরী মিশিয়ে এ কাজে মনোনিবেশ করেন যদিও এতে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ তেমন নেই। অতিকষ্টে দিন যাপন করেন এমন অবয়বশিল্পীগণ।

ময়মনসিংহ শহরের তেমনই একজন অবয়বশিল্পী সিরাজুল ইসলাম বুলবুল। ময়মনসিংহ সাংস্কৃতিক অঙ্গনের এমন কেউ নেই যে তাঁকে না চিনে। এছাড়া ঢাকা, নীলফামারী, জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোনাসহ বিভিন্ন জায়গার শিল্পীদের মাঝে এক পরিচিত মুখ বুলবুল।

যেকোন অভিনয়ের চরিত্রটিকে ফুটিয়ে তুলতে তিনি দক্ষ কারিগর। যিনি টানাপোড়েনের সংসারে ভালোবেসে এবং জেদের বশে এ পেশাকে বেছে নেন। কথা হয় তার সাথে। তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, এফডিসিতে কাজ করার সময় একজন অবয়বশিল্পীর কাজ তিনি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখছিলেন, সেই শিল্পী তাঁকে বারবার খোঁচা দিয়ে বলছিলেন, পারবি,পারবি? এটা এতো সহজ নয়। সবাই পারে না। এর পর তিনি আত্মবিশ্বাসের ভঙ্গীতে বলেছিলেন, অবশ্যই পারবো। মানুষের কাছে অসাধ্য কিছুই নয়। এরপর থেকেই তিনি প্রায় ৩০ বছর যাবত এ পেশায় কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি যাত্রাপালাসহ অনেক নাটকে তিনি অভিনয়ও করেছেন।

কিন্তু হঠাৎ গত ২২ মে তিনি পড়ে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। কথা বলা বন্ধ হয়ে যায়। এক হাত প্রায় অবশ হয়ে যায়। তিনি বিছানায় পড়ে কাতরান। দেশের এই করোনাকালীন পরিস্থিতিতে তিনি মানবেতর জীবনযাপন করেছেন। সংস্কৃতি শাখার বিভিন্ন প্রোগ্রাম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তিনিও কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েছেব। তার উপর এখন তিনি প্যারালাইজড হয়ে পড়ায় চলার সক্ষমতা হারিয়েছেন।

করোনাকালীন সময়ে বিভিন্ন সংগঠন থেকে ত্রাণ সহযোগীতা পাওয়ায় তার চলেছে। কিন্তু এখন যেখানে সংসার চালানো দায় হয়ে পড়েছে সেখানে চিকিৎসা করানোর কথা ভাবতে পারেন না অবয়বশিল্পী বুলবুল।
তিনি জানান, আমি অসুস্থ, অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে পারছি না। আমার সুস্থতার জন্য যতটুকু করা প্রয়োজন আপনারা সহযোগীতা করলে ভালো হয়ে যাবো। প্রশাসনসহ শিল্পীসমাজ আমার জন্য কিছু করেন। আমি সুস্থ হয়ে আবারো আপনাদের মাঝে ফিরতে চাই।

অবয়বশিল্পী মোঃ সিরাজুল ইসলাম বুলবুল এর জন্ম ১৯৫৮ সালের ১ লা জানুয়ারি। তাঁর পিতার নাম মৃত আব্দুল লতিফ, মাতা মৃত শামসুন্নাহার। থাকেন ময়মনসিংহ শহরের বাঘমারা মেডিকেল গেইট সংলগ্ন এলাকায়। বিবাহিত জীবনে তিনি তিন কন্যা ও দুই পুত্রের জনক। বসবাস করছেন স্ত্রী হোসনে আরা বেগমের সাথে। যিনি সুখেদুঃখে তার পাশে থেকে সেবা শুশ্রূষা করে যাচ্ছেন।

তিন মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন আর ২ ছেলের একজন ফার্নিচার এর কাজ করে আরেকজন ড্রাইভার। তারা দুজনই ঢাকায় থাকে। করোনাকালীন এ পরিস্থিতিতে তাঁরা তাদের পরিবার নিয়েই চলতে হিমশিম খাচ্ছে। তবুও মা বাবার জন্য করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কিন্তু কুলিয়ে উঠতে পারছেন না।

অবয়বশিল্পী বুলবুল সমাজের বিত্তবানসহ প্রশাসনের কাছে তার চিকিৎসাসহ আর্থিক সহযোগিতার আবেদন জানিয়েছেন। আর্থিক সহযোগিতা করার জন্য উনার বিকাশ নাম্বার ০১৭৩০৬০০৩৯৫ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

spot_img

Related articles

ভালুকায় কাভার্ডভ্যান উল্টে ২জন নিহত

কাভার্ড ভ্যান উল্টে নিহত, ভালুকা, ময়মনসিংহ

ভালুকায় পিকাপ গাড়ীসহ চোর চক্রের ৫ সদস্য আটক 

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ভালুকায় ২টি চোরাই পিকাপ গাড়ীসহ চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।...

ভালুকায় ধান ক্ষেত থেকে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

আফরোজা আক্তার জবা ভালুকা প্রতিনিধিঃময়মনসিংহের ভালুকায় হাজেরা খাতুন(৩৫) নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে ভালুকা মডেল থানা...

ভালুকায় পথচারীদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকায় প্রচন্ড তাপদাহে মানুষের তৃষ্ণা মেটাতে পথচারীদের মাঝে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার...