কলমাকান্দায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি চিঠি গোপনসহ অনিয়মের অভিযোগ

Date:

Share post:

কে. এম. সাখাওয়াত হোসেন  : বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরকারি চিঠি গোপন সহ তহবিলের টাকা খরচের অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এমনই অভিযোগ নেত্রকোনার কলামান্দা উপজেলা সদরে কলমাকান্দা পাইলট মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইলিয়াস হোসেন কোকিলের বিরুদ্ধে। তিনি শিক্ষক ও কর্মচারীদের বেতন সরকারি করণের চিঠি গোপন করেছেন।

জানা যায়, এ বিদ্যালয়টি সরকারিকরণের পর ২৯ জন শিক্ষক ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা আত্মীকরণের লক্ষ্যে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ফেরদৌসী আখতার স্বাক্ষরিত একটি চিঠি বিদ্যালয়ের ঠিকানায় পাঠান। আর সেই চিঠি ছয় মাস ধরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোপন রাখেন।

জেলার একই সময়ে অন্যান্য সরকারিকরণকৃত বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারিগণ ইতিমধ্যে সরকারি ভাতা পেয়েছে। কিন্তু ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের দাবি চিঠিটি প্রধান শিক্ষক উদ্দেশ্যমূলকভাবে গোপন করে ২৯ জন শিক্ষক ও কর্মচারীদের তালিকা যথাসময়ে প্রেরণ না করায় তাদের ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে।

এছাড়াও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তিনি বিদ্যালয়ের প্রায় ১ হাজার ৫ শত শিক্ষার্থীর কাছ থেকে পরিচয়পত্র বাবদ প্রতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১২০ টাকা করে আদায় করেন। সেই আদায়কৃত টাকা থেকে এ বাবদ খরচ না করে বিদ্যালয়ের তহবিলের টাকা তা পরিশোধ করেছেন।

ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ও কলমাকান্দা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি চন্দন বিশ্বাস জানান, ইলিয়াস হোসেন কোকিল দূর্নীতিবাদ প্রধান শিক্ষক। আমি সভাপতি থাকাকালীন সময়ে ৪০ লাখ টাকা বিদ্যালয়ের তহবিলে রেখে এসেছি। আমি বিদ্যালয় থেকে বের হয়ে আসার অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি ওই টাকা গ্রাস করেছেন।

তাছাড়া তিনি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পরিচয়পত্র বাবদ ১২০ টাকা করে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ কয়েক লাখ আদায় করেন। কিন্তু কার্ডের টাকা পরিশোধ করেন বিদ্যালয় তহবিল থেকে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে বলেও তিনি জানান।

চিঠি গোপনের অভিযোগ অস্বীকার করে কলমাকান্দা পাইলট মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইলিয়াস হোসেন কোকিল বলেন, শিক্ষার্থীদের পরিচয় পত্রের কার্ড বাবদ যে টাকা আদায় করা হয়েছে তা থেকেই কার্ডের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সোহেল রানা বলেন, আমি দায়িত্বে আসার আগেই প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পরিচয় পত্রের টাকা উত্তোলন করেছেন। এ বিষয়ে আমার জানা নেই। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবো। তাছাড়া বিদ্যালয়ের বিল ভাউচারের বিষয়ে প্রধান শিক্ষককে বললে তিনি বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে যান।

চিঠি গোপনের বিষয়ে তিনি বলেন, যদি এরকম হয়ে থাকে তাহলে তিনি এটি ভালো করেন নাই। তিনি আরও বলেন বিষয়টি তদন্তের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হবে। অভিযোগের সত্যতা পেলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

spot_img

Related articles

ভালুকায় কাভার্ডভ্যান উল্টে ২জন নিহত

কাভার্ড ভ্যান উল্টে নিহত, ভালুকা, ময়মনসিংহ

ভালুকায় পিকাপ গাড়ীসহ চোর চক্রের ৫ সদস্য আটক 

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ভালুকায় ২টি চোরাই পিকাপ গাড়ীসহ চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।...

ভালুকায় ধান ক্ষেত থেকে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

আফরোজা আক্তার জবা ভালুকা প্রতিনিধিঃময়মনসিংহের ভালুকায় হাজেরা খাতুন(৩৫) নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে ভালুকা মডেল থানা...

ভালুকায় পথচারীদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকায় প্রচন্ড তাপদাহে মানুষের তৃষ্ণা মেটাতে পথচারীদের মাঝে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার...