ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ন্যয় বিচারের আশায় আদালত প্রাঙ্গণে মা মেয়ের আত্মনাদ

Date:

Share post:

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ উপজেলার শাহাপুর ঘি-ঘাটা কামারপাড়ার অসহায় সাথি খাতুন। ন্যয় বিচারের আশায় প্রায়ই তাকে ঝিনাইদহের আদালত প্রাঙ্গণে দিশেহারা হয়ে শিশু কন্যাকে কোলে নিয়ে হতাশ হয়ে ঘুরতে দেখাযায়।বৃহঃবার সকালে ঘটনাক্রমে বিষয়টি সাংবাদিককে জানান । অশ্রুকন্ঠে সাথী খাতুন বলেন,আমি তখন অনেক ছোট,আমাকে নিয়ে আমার মা-বাবা ভারতে চলেযায়।বাবার মৃত্যুর পর মা বেলেহার খাতুন আমাকে নিয়ে আবার ফিরেআসেন নানা নানীর বাড়ী ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ উপজেলার শাহাপুর ঘি-ঘাটী গ্রামে।এখানে এসে নানীর জমিতে কোনমতে মাথাগোজার ঠাই হয়।এবং আমাকে তারা , টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর রাজু মিয়ার সাথে বিবাহ দেয়।আমি বর্তমান বাংলাদেশের নাগরিক।আমার মা নানী বাড়ীর ওয়ারীশের জমি চাইত প্রায়ই।কারন আমার মা বাংলাদেশে না থাকাকালীন নানী তার অন্য সন্তানদের কে কিছু জমি দলিল করে দেন।সেমতে আমার মাকে তার ভাগের জমি লিখেদেয়ার অঙ্গীকার করে নির্দৃষ্ট শর্ত মতে।শর্ত হচ্ছে আমি যদি দেহব্যবসা করে তাদের কে উপার্জন করে দেই।এবিষয়টি শোনামাত্র আমি আর্তনাদ ও প্রতিবাদ করি।কারন- আমার নানী সালেহা খাতুন,খালা বুলবুলি খাতুন- সর্বসাং-শাহপুর ঘি-ঘাটা কামার পাড়া গ্রামে তাদের নীজ বাড়ীতে বিভিন্ন অপকর্মে ও দেহ ব্যাবসায় লিপ্ত হতে দেখি।একপর্যায়ে আমার খালাতো ভাই আজিম সে তার কিছু চরিত্রহীন বন্ধুদের হাত করে আমার স্বামীকে প্রলোভন দেখিয়ে নেশাগ্রস্ত করে তার মাধ্যমে আমাকে দেহ ব্যাবসায় রাজী করানোর অপচেষ্টা করে।আমি রাজী না হওয়াতে আমার স্বামী প্রায়সই আমাকে মারধর ও নির্যাতন করত।একসময় আমি তাকে তালাকপ্রদান করি।এরপর থেকে শুরুহয় আমার নিকটতম আত্ত্বীয়-নানী,খালা ও খালাতো ভাইয়ের নির্যাতন।গত-২৩-০৬-২০১৮ইং তারিখ শনিবার রাত ১টার সময় আমার খালাতো ভাই আজিম ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী কে নিয়ে আমার ঘরে প্রবেশ করে।আমাকে ধর্ষণের চেষ্টাকরে।আমি চিৎকার দিলে তারা আমার শরীরে ও আমার শিশু কন্যাকে মারধর করে চলেযায়।আমি এ বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যানের নিকট বিচার চাইলে তিনি বিষয়টি গ্রামে মাতবরদের মাধ্যমে আপোষ হতে বলেন।অথচ গ্রামের মাতবর গন কেহই ঔ বিষয়টি আমলে নেয়নি।বাধ্যহয়ে আমি কালিগঞ্জ থানায় মামলা করতে গেলে ক্ষমতাসীন আসামীগনের সাথে পুলিশের যোগসাজ থাকার কারনে আমার অভিযোগটি পুলিশ গ্রহন করেন নি।বরং আমাকে আদালতে মামলা দিতে বলে।অতপর আমি আমার ওপর নির্যাতনের বিচার চেয়ে ঝিনাইদহ সিঃজুডিসিয়াল মেজিস্ট্রট আদালতের ৪৪৭/৩২৩/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ (২) দঃবিঃ ঘটনার বিবরন সহ সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বিচার দাবীকরি। বিজ্ঞ আদালত মামলার বিষয়টি ঝিনাইদহ পি বি আই অফিসের নিকট তদন্তের ভার প্রদান করেন।অথচ পিবিআই থেকে মামলার তদন্তের রিপোর্ট না প্রেরন করাতে আমি আমার প্রতি নির্যাতনের বিচার পাচ্ছিনা।অপরদিকে আসামী পক্ষ ক্ষমতাসীন হওয়াতে তারা আমার বিরুদ্ধে পাল্টা মিথ্যা মামলা দায়ের করে পুলিশি দিয়ে হয়রানী চেষ্টা করে ।আমি আমার শিশুকন্যাকে নিয়ে অসহায় অনাড়ম্ব জীবনযাপন করছি।আমার ও শিশুকন্যার চিকিৎসার খরচ যোগানে ব্যর্থ হয়ে বিনা চিকিৎসায় জীবনযাপন করছি। এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানা ওসি ইউনুচ আলী বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

spot_img

Related articles

ভালুকায় কাভার্ডভ্যান উল্টে ২জন নিহত

কাভার্ড ভ্যান উল্টে নিহত, ভালুকা, ময়মনসিংহ

ভালুকায় পিকাপ গাড়ীসহ চোর চক্রের ৫ সদস্য আটক 

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ভালুকায় ২টি চোরাই পিকাপ গাড়ীসহ চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।...

ভালুকায় ধান ক্ষেত থেকে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

আফরোজা আক্তার জবা ভালুকা প্রতিনিধিঃময়মনসিংহের ভালুকায় হাজেরা খাতুন(৩৫) নামে এক গৃহবধূর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে ভালুকা মডেল থানা...

ভালুকায় পথচারীদের মাঝে পানি ও স্যালাইন বিতরণ

আফরোজা আক্তার জবা, ভালুকা প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকায় প্রচন্ড তাপদাহে মানুষের তৃষ্ণা মেটাতে পথচারীদের মাঝে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার...